সানি-নাসরিনের কাবিননামার সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন! সানির অস্বীকার।

| জানুয়ারী 24, 2017 | 0 Comments

nasrin-550x367স্পোর্টস:
বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানির বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগের বিষয়টি ক্রমেই জটিল আকার ধারণ করছে। গত ৫ জানুয়ারি দায়ের করা সেই মামলার সূত্র ধরে রোববার সানিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ২৩ জানুয়ারি সোমবার তার বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন তার ‘কথিত’ স্ত্রী নাসরিন সুলতানা। কিন্তু বেশ কিছু কারণে ইতোমধ্যেই সেই তরুণীর সঙ্গে সানির সম্পর্ক নিয়ে কথা উঠছে। সে সঙ্গে আরাফাত সানি ও নাসরিন সুলতানার কাবিননামার সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
আরাফাত সানির বিরুদ্ধে করা নাসরিন সুলতানার মামলার এজাহার অনুযায়ী, গত ২০১৪ সালে সানি ও নাসরিন গোপনে বিয়ে করেছিলেন। সানির সঙ্গে নাসরিনের বিয়ের প্রমাণ হিসেবে একটি কাবিননামা আদালতে দাখিল করা হয়। কাবিননামায় উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর ৫ লাখ ১ টাকা দেনমোহরে আরাফাত সানির সঙ্গে নাসরিনের বিয়ে হয়। এতে আরাফাত সানির বয়স দেওয়া হয়েছে ২৮ বছর আর কনের বয়স দেওয়া হয়েছে ২১ বছর। কাজীর নাম হিসেবে দেওয়া আছে মো. আনোয়ার হোসেন।
যদিও সানি এবং তার পরিবারের পক্ষ থেকে বরাবরই সেই বিয়ের কথা অস্বীকার করা হচ্ছে। কিন্তু কাবিননামার কপিটি ইতিমধ্যেই সন্দেহের জন্ম দিয়েছে। কাবিননামা আসল কিনা তা নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়। কারণ কাবিননামায় উল্লেখিত কাজী আনোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কাবিননামাটি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন। কাবিননামায় তার অফিসের ঠিকানা হিসেবে দেওয়া আছে- ২০/বি, মেরাদিয়া, থানা: খিলগাঁও, জেলা: ঢাকা। কিন্তু আদতে আনোয়ার হোসেনের অফিস খিলগাঁও হলেও এই ঠিকানার ধারেকাছে নয়। অনুসন্ধানে দেখে গেছে যে, উল্লেখিত ঠিকানায় কোনো কাজী অফিস সেখানে নেই। আশেপাশে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এই ঠিকানায় কখনই কোনো কাজী অফিস ছিল না। সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্যটি হল, কাবিননামার কপিটি দেখে আনোয়ার হোসেন সাক্ষর ও সীলমোহর তার নয় বলে জানিয়েছেন।
আনোয়ার হোসেনের এই তথ্যের পর পরই ওপর আরাফাত সানি ও নাসরিনের কাবিননামার সত্যতা নিয়ে সর্ব মহলে প্রশ্ন ওঠতে শুরু হয়েছে। কাজি আনোয়ার হোসেনের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে কাবিননামার সত্যতা যাচাই করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ। একইসাথে আলামত হিসেবে জব্দ করা হয়েছে নাসরিনের মোবাইল ফোনটিও। ফোনটি ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য সিআইডির পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। এখন দেখার বিষয় শেষ পর্যন্ত ঘটনা কোন দিকে মোড় নেয়।// বিডিপ্রতিদিন

বিয়ের কথা অস্বীকার আরাফাত সানির
তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় ক্রিকেটার আরাফাত সানিকে একদিনের রিমা- নিয়ে জিজ্ঞাবাসাদ করছে পুলিশ। তবে জিজ্ঞাসাবাদে তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। নাসরিন সুলতানা নামে কোনো নারীকে বিয়ে করেননি বলে দাবী করেছেন আরাফাত সানি। এছাড়া ওই নারীর আপত্তিকর কোনো ছবিও ফেসবুক মেসেঞ্জারে তিনি পাঠাননি।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও এসআই মো. ইয়াহিয়া বলেন, আরাফাত সানিকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে জিজ্ঞাসাবাদে বিয়ের কথা স্বীকার করেনি আরাফাত সানি। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদে যেসব তথ্য দিয়েছে সেগুলো যাচাই বাচাই করে দেখা হচ্ছে। আলামত হিসাবে মামলার বাদীর মোবাইলফোন জব্দ করা হয়েছে। সেটি ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর বিস্তারিত জানা যাবে। রোববার ৫ দিনের রিমা- চেয়ে আদালতে পাঠানো হয় আরাফাত সানিকে। শুনানি শেষে আদালত একদিনের রিমা- মঞ্জুর করেন। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার তাকে আদালতে হাজির করা হবে। প্রয়োজনে আবারও রিমান্ড আবেদন করা হবে।
তিনি আরও বলেন, নাসরিন সুলতানা পুলিশকে বিয়ের প্রমান হিসাবে কাবিননামা দিয়েছেন। কাবিননামা সত্যতা যাচাই করে দেখা হচ্ছে।//আমাদের সময়

Category: 1stpage, Scroll_Head_Line, শীর্ষ সংবাদ, স্পোর্টস

About the Author ()

Leave a Reply