বিক্রি হয়ে যাচ্ছে ইউরোপের গির্জাগুলি

| নভেম্বর 2, 2013 | 0 Comments

ইউরোবিডি২৪নিউজঃ আমেরিকার একটি ক্যাথলিক গির্জা মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে। কেমব্রিজের সেইন্ট পিটার্স ক্যাথলিক চার্চের স্থানে গড়ে উঠবে ‘মদিনা মসজিদ’।

জনসমাগম কমে যাওয়ায় গির্জাটি বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। গির্জার একমাত্র মুখপাত্র বলেন, ‘‘এই গির্জাটির রয়েছে সুদীর্ঘ ইতিহাস। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে এর ভক্তের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। পাশাপাশি খ্রিস্টান ধর্মেও স্থান দখল করে নিচ্ছে ইসলাম। ফ্রান্সের বিখ্যাত এমানুয়েল মুনিয়ার, জ্যাক মরিটেনন, তেনলহার্ড় ডি চার্ডিনসহ বহু গির্জার স্থানে মসজিদ, শো-রুম ও শপিং মল গড়ে উঠেছে।’’

দ্য অবজারভেটরি ফর রিলিজিয়াস হেরিটেজ জানায়, প্রধমবারের মতো খ্রিস্টান উপসনাগুলো ভেঙে সেখানে পার্কিং ব্যবস্থা, রেস্তোরাঁ, বুটিক, বাগান ও ঘরবাড়ি গড়ে উঠেছে। ফ্রান্সের জানিয়েুচে, দেমের ২৮০০ খ্রিস্টান ধর্মীয় ভবন উচ্ছেদ করার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ও ফ্রান্সে ৪০ হাজার যাজক ছিলেন। এখন নেমেছে ৯০০০-এ। অনেক গির্জা ভেঙে গড়ে উঠেছে মসজিদ। সেইন্ট ক্রিস্টোফারের পুরাতন গির্জা কুই মালাকফ নানাটসের স্থানে গড়ে উঠেছে ফোরকান মসজিদ।

ইতিহাসবিদ ডিডিয়ার রিকনার লিখেছেন, ‘‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম গির্জাগুলো গুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। গত জুনে ভিরজনের সেইন্ট-ইলোই গির্জাকে মসজিদে রূপান্তর করা হয়েছে।’’

সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন স্পিরিটের হিসাবে, আগামী দুই বছরের মধ্যে জার্মানির ৪৫ হাজার গির্জার ১৫ হাজার বা প্রায় এক তৃতীয়াংশই উচ্ছেদ অথবা বিক্রি হয়ে যাবে। তবে অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে গির্জাগুলো বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে না। জার্মানরা ক্রমেই ধর্ম ত্যাগ করছেন। প্রতি ৭৫ সেকেন্ডে একজন জার্মানি গির্জায় যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। জার্মানি ইভানজেলিকার চার্চই ১৯৯০ ধেকে ২০১০ সালের মধ্যে ৩০টি গির্জা বন্ধ করে দিয়েছে।

বিপ্লবী কার্ল মার্ক্সের শহরে একটি গির্জা জিমে পরিণত হয়েছে। ফ্রাঙ্কফুর্টে গত শতাব্দীর ৫০ এর দশকে প্রোটেস্টান্টের সংখ্যা ছিল চার লাখ ৩০ হাজান। এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে এক লাখ ১০ হাজারে। এখনকার এক চতুর্থাংশ গির্জাই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নেদারেল্যান্ডে প্রতি সপ্তাহে দুটি খ্রিস্টান ধর্মীয় ভবন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

যাজক জান স্টুইট বলেন, ‘‘নেদারল্যান্ডে রোববার গির্জায় ক্যাতলিকদেও উপস্থিতি ছিল ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৯০ শতাংশ। এখন এই সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ১০ শতাংশ। নেদারল্যান্ডে প্রতি বছর ৬০টি উপাসনালয় উচ্ছেদ, বন্ধ অথবা বিক্রি হয়ে যায়। ১৯৭০ সাল থেকে ২০০৮ সালের মধ্যে ২০৫ টি গির্জা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ সময় ১৪৮টি গির্জাকে লাইব্রেরি, রেস্তোরাঁ, জিম, আপার্টমেন্ট ও মসজিদে রূপান্তর করা হয়েছে। আমস্টারডামে একটি গির্জার জায়গায় গড়ে উঠেছে মসজিদ। শহরের সবচেয়ে পুরনো সেন্ট জ্যাকোবাস গির্জাটিকে বিলাসবহুল বাসভবনে রূপান্তর করা হয়েছে এই শহরের প্রোটেস্টান্ট গির্জাগুলোর সংখ্যা প্রতি বছর ৬০ হাজার করে কমেছে। এই হার অব্যাহত থাকলে ২০৫০ সালে এখানে আর কোনো প্রোটেস্টান্ট খ্রিস্টান থাকবে না।’’

সম্প্রতি ইউট্রেস্টান্ট ও আমস্টারডামের দুটি প্রোটেস্টান্ট গির্জাকে মসজিদে রূপান্তর করা হয়েছে। এই পাশ্চাত্যেও বর্তমান অবস্থা।

সুত্রঃ নতুনবার্তা

Category: 1stpage, Scroll_Head_Line, আন্তর্জাতিক, ইউরো সংবাদ, ইউরো সংবাদ, ইউরো-সংবাদ - France, প্রচ্ছদ, ফ্রান্স, ফ্রান্স, শীর্ষ সংবাদ

About the Author ()

Leave a Reply